মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

এক নজরে

অফিস পরিচিতিঃ-

(ক) অফিসের অবস্থানঃ-  "বিসিক জেলা কার্যালয়, মেহেরপুর", মেহেরপুর-কুষ্টিয়া সড়ক, বসন্তপুর, মেহেরপুর

(খ) বিসিকের মূল কর্মকান্ডঃ-

দেশে ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প খাতের উদ্যোক্তাদেরকে সেবা ও সহায়তা প্রদানের মাধ্যমে শিল্পোৎপাদন বৃদ্ধি, দেশের শিল্পায়প্নে অবদান রাখা ও কর্মসংস্থান সৃষ্টির, দারিদ্র্য বিমোচন, উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধি, শিল্পায়নের মাধ্যমে আঞ্চলিক ভারসাম্য নিশ্চিতকরণ, সর্বোপরি আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে সহায়তা প্রদান ।

 বাংলাদেশের অর্থনীতি কৃষি ভিত্তিক হলেও জনসংখ্যা দ্রুত গতিতে বাড়ছে কিন্তু জমির পরিমাণ বাড়ছে না ।জনসংখ্যা দ্রুত গতিতে বাড়ার ফলে আবাদী জমির পরিমাণ কমে যাওয়াতে কৃষি খাতে কর্মসংস্থানের সুযোগ কমে যাচ্ছে । আংলাদেশের মোট শ্রম শক্তির প্রায় ৮০ ভাগ কৃষীতে নিয়োজিত , ফলে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে কৃষির পাশাপাশী শিল্পায়নে অগ্রগতির যাত্রাকে গতিশীল রাখার বিকল্প নেই ।

 

(গ)অফিসের ইতিহাসঃ-

বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন(বিসিক) দেশের ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প উন্নয়ন ও সম্প্রসারণে নিয়োজিত সরকারী খাতের মূখ্য প্রতিষ্ঠান । ১৯৫৭ সনের তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের প্রদেশিক আইন পরিষদের গৃহীত ১৭ নং সংসদীয় আইনের মাধ্যমে পূর্ব পাকিস্তান ক্ষুদ্র শিল্প প্রতিষ্ঠান (ইপ্সিক) প্রতিষ্ঠা লাভ করে । এর গৌরবময় অধ্যায় হলো তখনকার যুক্ত ফ্রন্ট সরকারের শ্রম ও  শিল্পমন্ত্রী জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমান বিলটি সংসদে উত্থাপন করেন । ৩০ শে মে ১৯৫৭ সালে এ বিল আইন হিসেবে পাস হবার পর তা কার্যকর হয় । আজকের বিসিক তৎকালীন ইপ্সিক এর উত্তরসূরী ।

 ক্ষুদ্র  ও কুটির শিল্পের প্রসার ও উন্নয়নের মাধ্যমে দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ও জাতীয় অগ্রগতি অর্জনই বিসিকের সমুদয় কর্মকান্ড পরিচালনার উদ্দেশ্য । এ উদ্দেশ্যকে বাস্তবায়ন করতে গিয়ে বিসিকের ৬৪টি জেলায় তাদের নিজস্ব কার্যালয় স্থাপন করেছে । এ পর্যন্ত বিসিকের উদ্যোগে সারাদেশে ৭৪টি শিল্প নগরী স্থাপিত হয়েছে এবং সারা দেশে বিসিকের কর্মকান্ড সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য ৪ বিভাগে ৪টি আঞ্চলিক কার্যালয় স্থাপন করা হয় ।

১৯৮৭ সালে বিসিক জেলা কার্যালয়, মেহেরপুর কার্যক্রম শুরু করে। এরপর থেকে মেহেরপুরের ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পের বিকাশে কাজ করে যাচ্ছে বিসিক জেলা কার্যালয়, মেহেরপুর।

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter